টক-ঝাল-মিষ্টি

দারুণ স্বাদে আমলকীর ঝাল-মিষ্টি আচার।

দারুণ স্বাদে আমলকীর ঝাল-মিষ্টি আচার।

ভিটামিন সি-এর আধার হিসেবে সুপরিচিত এবং অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি ফল হলো আমলকী। দক্ষিণ এশিয়ার প্রায় সব দেশেই এই ফলটি প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। বাংলাদেশেও তা অত্যন্ত সহজলভ্য। আমলকী ইংরেজি নাম Amla, এটা Indian gooseberry নামেও পরিচিত। ফল হিসেবে আমলকীর রয়েছে বহু গুণ। যার মধ্যে অন্যতম হলো ভিটামিন সি-এর অভাবে হওয়া রোগগুলোকে প্রতিরোধ করা। এছাড়া আমলকী ক্যান্সারও প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে। একজন পূর্ণ বয়স্ক লোকের ভিটামিন সি-এর দৈনিক চাহিদা ৩০ মিলিগ্রাম। দিনে দুটো আমলকী খেলেই এ চাহিদা পূরণ হয়ে যায়।

আমাদের এনড্রয়েড মোবাইল এপস। বাছাই করা সেরা ১০১ পিঠার রেসিপি। ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুণ!

শুধু ফল হিসেবে কাঁচা আমলকী নয়, বানিয়ে খেতে পারেন আমলকীর আচারও। অন্যান্য ফলের মতো আমলকী দিয়েও বানানো যায় চমত্‍কার আচার। রইলো আমলকীর মজাদার ঝাল-মিষ্টি আচারের রেসিপি।

উপকরণ

  • # আমলকী- আধা কেজি
  • # সরিষা বাটা- ২ টেবিল চামচ
  • # রসুন বাটা- ২ টেবিল চামচ
  • # লবণ- স্বাদমতো
  • # হলুদ গুঁড়া- ১ চা চামচ
  • # মরিচ গুঁড়া- ২ টেবিল চামচ
  • # ভিনেগার- আধা কাপ
  • # শুকনা মরিচ- ৬টা
  • # আদা কুচি- ২ টেবিল চামচ
  • # পাঁচফোড়ন গুঁড়া- ২ টেবিল চামচ
  • # সরিষার তেল- প্রয়োজনমতো

প্রস্তুত প্রণালি

আমলকীগুলো টুথপিক বা কাঁটা চামচ দিয়ে ছিদ্র ছিদ্র করে বা কেঁচে নিন।

এরপর ফিটকিরি মেশানো পানিতে ৭-৮ ঘণ্টা ডুবিয়ে রাখুন। মাঝে মাঝে পানি পালটে দিন।

ফিটকিরি মেশানো পানি থেকে আমলকীগুলো তুলে ভালো করে ধুয়ে নিন এবং পানি ঝরতে দিন।

একটি পাত্রে পানি নিয়ে তাতে লবণ দিয়ে গরম করুন। পানি ফুটে উঠলে তাতে আমলকীগুলো দিয়ে দিন।

  ১০ মিনিট পর পাত্রটি নামিয়ে ফেলুন এবং আবার পানি ঝরান।

একটি পাত্রে সরিষার তেল নিয়ে চুলোতে বসান।

তেল গরম হয়ে গেলে এতে রসুন বাটা দিয়ে হালকা ভেজে নিন।

এরপর এতে আদা কুচি, হলুদ গুঁড়া, মরিচ গুঁড়া, শুকনা মরিচ, সরিষা বাটা ও সামান্য লবণ দিয়ে আরেকটু ভেজে নিন।

এরপর এতে ভিনেগার ও চিনিটুকু ঢেলে দিয়ে নাড়তে থাকুন।

চিনি গলে গেলে এতে আমলকীগুলো দিয়ে দিন। মাঝে মাঝে নেড়ে দিন।

এরপর এতে পাঁচফোড়নের গুঁড়া ছিটিয়ে দিয়ে নেড়ে দিন।

৫ মিনিট পর নামিয়ে ফেলুন।

আচার তৈরিতে চিনির পরিবর্তে গুড়ও ব্যবহার করতে পারেন। সেক্ষেত্রে গুড় আগেই গলিয়ে নিন।

আচার ঠান্ডা হয়ে গেলে বয়ামে তুলে সংরক্ষণ করুন। প্রয়োজনে এতে বাড়তি সরিষার তেলও যোগ করতে পারেন।

'সবধরনের ভিডিও রেসিপি দেখতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুণ!'


বিঃ দ্রঃ মজার মজার রেসিপি ও টিপস, রেগুলার আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বিডি রমণী



Click to comment

You must be logged in to post a comment Login

Leave a Reply

সর্বোচ্চ পঠিত

BD Romoni YouTube Channel
To Top