জানা-অজানা

শেষ অবধি ক্ষুধার্ত অসহায় বৃদ্ধা সেই মায়ের পাশে ‘জাগ্রত মানবতা’! ভাতের অভাব মিটবে কী ?

শেষ অবধি ক্ষুধার্ত অসহায় বৃদ্ধা সেই মায়ের পাশে ‘জাগ্রত মানবতা’! ভাতের অভাব মিটবে কী ?

মা হলো পৃথিবীর একমাত্র ব্যাংক যেখানে আমরা আমাদের সব দুঃখ কষ্ট জমা রাখি এবং বিনিময়ে নেই বিনাসূদে অকৃত্রিম ভালোবাসা। মানুষের কাছে সবচেয়ে প্রিয় ব্যক্তিটির নাম ‘মা’, সেই ‘মা’ কেই মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছে তারই পাষন্ড বড় ছেলে বদিরউদ্দীন (৬০)।

আমাদের এনড্রয়েড মোবাইল এপস। বাছাই করা সেরা ১০১ পিঠার রেসিপি। ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুণ!

মঙ্গলবার সকালে নির্মম ঘটনাটি ঘটেছে ঠাকুরগাঁও জেলার হরিপুর উপজেলার ৪নং ডাঙ্গীপাড়া ইউনিয়নের ডাঙ্গীপাড়া গ্রামে। পাষন্ড ছেলের নির্যাতনের শিকার বৃদ্ধা ‘মা’ ঐ গ্রামের মৃত সফিরউদ্দীনের স্ত্রী তাসলেমা খাতুন (৯৮)। এমন অমানবিক ঘটনার পর প্রতিবাদের ঝড় উঠে , এগিয়ে আসে ঠাকুরগাওয়ের বেশ কজন সাংবাদিক সহ নানা শ্রেনী-পেশার মানুষ। অবশেষে আজ বুধবার  হরিপুরে ঐ বৃদ্ধা মাকে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে উন্নত চিকিতসার জন্য নিয়ে এসেছেন তারা।

গতকাল গনমাধ্যমে অসহায় ঐ বৃদ্ধা মায়ের ছবি প্রকাশিত হলে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যপক আলোচিত হবার পর জেলা সদর থেকে বৃদ্ধার বাড়ি হরিপুরে ছুটে যান ঠাকুরগাওয়ের জেলা প্রশাসক আব্দুল আউয়াল সহ একদল সংবাদকর্মী। এরপর সদরে এনে ভর্তি করান হাসপাতালে ।

এর আগে গ্রামবাসী জানায়, বৃদ্ধা তাসলেমা খাতুনের স্বামী মারা যাওয়ার ৩০ বছর হয়। মারা যাওয়ার সময় তার স্বামী দুই ছেলে দুই মেয়ে রেখে যায়, এবং দুই ছেলের নামে ৩ একর ৩০ শতাংশ জমি দলিল দেয়। এবং বসতভিটা বড় ছেলের ছেলে (নাতি) চালাকি করে বৃদ্ধা তাসলেমা খাতুনের কাছ থেকে দলিল করে নেয়। সেই বৃদ্ধা তাসলেমা খাতুন চোখে ঠিক মতো দেখা না, কানে তেমন শোনে না, মুখে কথা বলতে পারে না।

সরেজমিনে জানা যায়, মঙ্গলবার (১৫ই আগষ্ট) সকালে বৃদ্ধা তাসলেমা খাতুন ক্ষুধার্ত ছিলেন, তখন তিনি বড় বৌমার কাছে ভাত চাইতে গেলে এ ঘটনা ঘটে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামবাসী জানায়, খাবার কে কেন্দ্র করে বউয়ের কথায় ছেলে বদিরউদ্দীন বৃদ্ধা মায়ের মুখ বরাবর আঘাত করে। ঘটনাস্থলে বৃদ্ধা মায়ের বাম চোখের নিচ অংশ ক্ষত হয়ে রক্ত পাত হয়। নির্যাতন শেষে বাড়ির বাহিরে ফেলে রেখে যায়। তখনি গ্রামবাসীরা বৃদ্ধা মাকে মুমূর্ষু অবস্থা দেখে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে ভর্তি করে।

কর্মরত চিকিৎসক জানায়, রোগীর অবস্থা খুব খারাপ তাকে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠাতে হবে।

অসহায় বৃদ্ধা মা’কে বাড়ি থেকে আনতে ছুটে যান ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসক আব্দুল আউয়াল। ছবিতে সাদা শার্ট পরিহিত জেলা প্রশাসক
এই বিষয়ে ছোট ছেলে হরিপুর উপজেলা শাখার বিআরডিবির কর্মচারী মোসলেমউদ্দীন (সুধু) মুঠোফোনে বলেন, ঘটনার সময় আমি ছিলাম না। এভাবে বৃদ্ধা মাকে মারধর করা ঠিক হয়নি।

তরুন সাংবাদিক ও সমাজকর্মী তানভির তানু হাসান তানু তার ফেসবুকে লিখেছেন,
বৃদ্ধ “মা “তোমার দায়িত্ব আমিই নিব………

মানব শিশু’র জন্ম হয় মায়ের গর্ব থেকে, আবার সেই মায়ের কোলেই তার বসবাস। আর অন্য সব সৃষ্টির চেয়ে মানব শিশূ খুব দুর্বল হয়ে জন্ম নেয়। তার নিজের কোনকিছু করার মত তেমন ক্ষমতা থাকে না। পারেনা সাথে সাথে সে কথা বলতে, নিজের প্রয়োজন ও সমস্যা অন্য কাওকে বোঝাতে। এই বোঝাতে না পারা শিশুর সমস্ত প্রয়োজন কেউ বুঝতে না পারলেও, বুঝতে পারে কেবল একজন মা। মাকে এই ক্ষমতা দেয়া হয়েছে আল্লাহ তা’আলার পক্ষ হতে।

মা অনেক কষ্ট করে প্রায় দশ মাস পেটে আগলে রাখে প্রিয় সন্তানকে, পৃথিবির নতুন মেহমানকে। নিজের জীবনের চেয়ে সন্তানকে বেশী ভালোবাসে। এই ভালোবাসার কারনে অনেক মা সন্তান প্রসব কালে নিজের জীবন দিয়েও তা প্রমান করেছে অনেকবার।

একজন জীবন্ত মানুষের পেটে আর একজন মানুষকে বয়ে নিয়ে সব কাজ সম্পাদন করা যে কতটা কষ্টকর, তা মা ছাড়া আর কেউ অনুভব করতে পারবে না। যদি কাউকে হাজার হাজার টাকার বিনিময়ে একটা ইট পেটে বেঁধে নিয়ে মাত্র এক সপ্তাহ চলাফেরা করতে বলা হয়, তবে আমার জানা মতে এ জগতে এমন কাউকেও খুঁজে পাওয়া যাবে না। কিন্তু হাজার কষ্ট সহ্য করে নিজ গর্বে সন্তানকে আগলে রাখে পরম যত্নে মাসের পর মাস ধরে এই জগতের শুধু মা।

মা, দুনিয়ার সবচেয়ে মধুর একটি নাম । হাজারও ব্যাথা ভুলে থাকা যায় শুধু মা ডেকে । সেজন্যই কবি বলেছেন “মায়ের আঁচলে যতক্ষন থাকবি ততক্ষনই শান্তি”। মা ডাকের উচ্চারণগত বৈশিষ্ট লক্ষ্য করলে দেখা যায়, দুই ঠোট এমন ভাবে মিশে যায়, যা অন্য কোন ডাকে হয়না।

আগের সংবাদ

ভাত খেতে চাওয়ায় ৯৮ বছরের বৃদ্ধা মাকে ছেলের নির্মম নির্যাতন, হাসপাতালে নিলো গ্রামবাসী

সর্বশেষ আপডেট-

ফেসবুকে এই অসহায় বৃদ্ধা মায়ের সংবাদটি চোখে পড়ার সময়ের কণ্ঠস্বরের নিউজরুমে ফোন দিয়েছিলেন আপন নিবাস নামের একটি বৃদ্ধাশ্রমের পরিচালক সেলিনা সিমি। তিনি জানালেন এই অসহায় মায়ের দায়িত্ব নিতে চান তিনি ।

 

 

'সবধরনের ভিডিও রেসিপি দেখতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুণ!'


বিঃ দ্রঃ মজার মজার রেসিপি ও টিপস, রেগুলার আপনার ফেসবুক টাইমলাইনে পেতে লাইক দিন আমাদের ফ্যান পেজ বিডি রমণী



সর্বোচ্চ পঠিত

BD Romoni YouTube Channel
To Top