২২০ কেজি ওজনের বিশাল দেহ নিয়েই চলতে হয়েছিল বলিউডের বিখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী আদনান সামীকে। এসেছিলেন পাকিস্তান থেকে ভারতে। প্রথম গানেই হিট। আর ফিরে যেতে হয়নি।

পাকাপাকিভাবে ভারতের নাগরিকত্ব পেয়ে গিয়েছেন তিনি। এ সংক্রান্ত একটি খবর প্রকাশ করেছে ভারতের আজকাল পত্রিকা।২০০৬ সাল থেকে হঠাৎ করে অনুষ্ঠান করা বন্ধ করে দিয়েছিলেন আদনান। কোথায় গিয়েছেন। কি করছেন কেউ জানতেন না।

ফিরলেন ২০০৯ সালে একেবারে নয়া কলেবরে। দেখে চেনা যাচ্ছিল না তিনি সেই ২২০ কিলোর আদনান। ছিপছিপে চেহারা একেবারে নায়ক নায়ক দেখতে লাগছিল আদনানকে।

১৬ মাসের মধ্যে কীভাবে ১৫৫ কিলো ওজন কমালেন আদনান নিজেই শুনিয়েছেন সেই গল্প। অনেকে বলেছিলেন লাইপোসেকশন সার্জারি করে রোগা হয়েছেন তিনি। যদিও আদনান সে জল্পনায় একেবারেই পানি ঢেলে দিয়েছেন।

ওজন কমানোর পুরো প্রক্রিয়াটাই করেছেন তার ডায়টেশিয়ান। মোটা হতে হতে একটা সময় এমন অবস্থা হয়েছিল তার যে চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন এভাবে ওজন বাড়তে থাকলে ৬ মাসের বেশি বাঁচবেন না।

এই কথা শোনার পর আদনানের ক্যান্সারে আক্রান্ত বাবা ছেলের হাত ধরে বলেছিলেন মৃত্যুর আগে ছেলের কবরে মাটি দিতে চান না তিনি। সেই কথাই তার ওজন কমানোর জেদ চাপিয়ে দিয়েছিল।

রোগা হতে হাস্টনে চলে গিয়েছিলেন তিনি। সেখানে ১৬ মাস ধরে ডায়টেশিয়ানের পরামর্শ মত কঠোর নিয়ন্ত্রিত জীবন যাপন করেছেন। প্রথমে কোপ পড়ে খাবারে। সবরকম ফ্যাট যুক্ত খাবার খাওয়া একেবারে নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়।

দিন শুরু হত এক কাপ চিনি ছাড়া চা দিয়ে। দুপুরে খেতেন লবণ ও মাখন ছাড়া স্যালাড। সঙ্গে একটু মাছ। বিকেলে থাকতো বাড়িতে তৈরি লবণ ও মাখন ছাড়া পপকর্ন। আর রাতে খেতেন সেদ্ধ ডাল সঙ্গে একটুকরো চিকেন।

এভাবেই কঠোর নিয়ম মেনে খাওয়া দাওয়া করেছেন তিনি। তার সঙ্গে ছিল শরীরচর্চা। প্রথম প্রথম হাল্কা কিছু ট্রেডমিল করতেন তিনি। তারপর ধীরে ধীরে সেটার পরিমাণ বাড়তে থাকে। তার সঙ্গে ছিল কার্ডিও এক্সারসাইজও। এভাবেই প্রায় ১৫৫ কেজি ওজন কমিয়েছেন আদনান।

গুগল প্লে-স্টোর থেকে আমাদের "পিঠার ১০১ রেসিপি" এন্ড্রয়েড এপসটি ডাউনলোড করুণ এখনি!