যদিও পিঠাপুলির মৌসুম বলতে আমরা শীতকালকেই বুঝি তবুও পহেলা বৈশাখসহ নানা উৎসবে সারা বছর জুড়েই আমরা বাঙ্গালীরা নানা রকম পিঠা খেয়ে থাকি। আজকের পোষ্টে থাকবে বাঙ্গালীর পছন্দের পিঠাগুলোর মধ্য থেকে বাছাই করা ১০১  পিঠার রেসিপি।

আপনাদের সুবিধার জন্য ১০১ পিঠার রেসিপি দিয়ে আমরা তৈরি করেছি এনড্রয়েট এপস। এপসটি ডাউনলোড করতে এই লিংকে ক্লিক করুণ অথবা প্লে-স্টোরে “পিঠার ১০১ রেসিপি” অথবা “BD Romoni” লিখে সার্চ করুণ!

১। পাটিসাপটা পিঠা রেসিপি 

পাটিসাপটা পিঠা

উপকরণ

– দুধ ২ লিটার।
– চিনি ৫০০ গ্রাম।
– সুজি দুই টেবিল চামচ।
– মিহি নারিকেল কোরা আধা কাপ।
– চালের গুঁড়া ১ কেজি।
– ময়দা আধা কাপ।
– তেল ভাজার জন্য।
– লবণ স্বাদমতো।
– পানি পরিমাণ মতো।

প্রণালী

প্রথমে অর্ধেক চিনি আর ২ লিটার দুধ ঘন করে জ্বাল দিয়ে নিতে হবে। এবার তার ভেতর সুজি আর নারিকেল কোরা ছেড়ে ক্ষীর তৈরি করে নিন। ক্ষীর ঘন হলে নামিয়ে রাখুন।

এবার চালের গুঁড়া, বাকি চিনি, পানি আর লবণ দিয়ে পাতলা গোলা করে নিন। ফ্রাই প্যানে সামান্য তেল লাগিয়ে গরম করে নিতে হবে। এবার আধা কাপ গোলা দিয়ে একটা পাতলা রুটির মতো করে বানিয়ে নিন। রুটির ওপরের দিকে শুকিয়ে এলে এক টেবিল চামচ পরিমান ক্ষীর দিয়ে মুড়িয়ে পাটিসাপটার আকার দিয়ে আরেকটু ভেজে নিন।

এভাবে একটি একটি করে পিঠা বানিয়ে নামিয়ে আনুন। ঠাণ্ডা হলে পরিবেশন করুন মজার পাটিসাপটা পিঠা।

২। সবজির পাটিসাপটা রেসিপি 

সবজির পাটিসাপটা রেসিপি

উপকরণ

– ময়দা ১ কাপ।
– সুজি ১/২ কাপ।
– ডিম ২ টি।
– গাজর মিহি কুঁচি ১ টি।
– বাঁধাকপি মিহি কুঁচি ১/২ কাপ।
– পেঁয়াজ, কুঁচি ১ টি।
– কাঁচা মরিচ কুঁচি ৪/৫ টি।
– সয়া সস ২ টেবিল চামচ।
– লবন স্বাদ মত।
– তেল পরিমান মত।
– ধনে পাতা কুঁচি সামান্য পরিমাণ।

প্রণালী

প্রথমে ময়দা আর সুজি একটি বাটিতে নিয়ে তাতে সামান্য লবন ও একটি ডিম দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে গোলা তৈরি করুন। প্রয়োজনে একটু পানি মেশান। মোটামুটি ঘন একটি গোলা তৈরি করতে হবে। গোলাটিকে ৩০ মিনিট রেখে দিন!

এবার কড়াইতে তেল দিয়ে পেঁয়াজ, কাঁচা মরিচ কুঁচি বাদামি করে ভেজে নিন। এবার সবজিগুলো দিয়ে দিন। পরিমান মত লবন দিন। মিনিট পাঁচেক রান্না করুন। একটু নরম হলেই একটি ডিম ফেটিয়ে নিয়ে তাতে ছেড়ে দিন। ভালো করে মিশিয়ে নিন। সয়াসস দিয়ে নেড়েচেড়ে বেশ মাখামাখা হয়ে আসলে ধনেপাতা কুঁচি ছিটিয়ে নামিয়ে নিন।

এবার ননস্টিক প্যান বা তাওয়া গরম করে তেল দিয়ে ব্রাশ করে নিন। এবার ২ টেবিল চামচ গোলা প্যানে ঢেলে সমান ভাবে গোল করে ছড়িয়ে দিন। এসময় আঁচ কম রাখতে হবে। গোলাটা একটু শুকিয়ে আসতে শুরু করলে খুন্তি দিয়ে নিচের দিক টা তুলে নিন। উলটে দেবেন না।

এবারে ২ চামচ ডিম-সব্জির পুর পাটিসাপটার এক পাশে লম্বা করে বিছিয়ে দিন। তারপরে সাবধানে চামচের সাহায্যে পাটিসাপটার মত রোল করুন। মুড়িয়ে নেয়ার পর আরও ২/৩ মিনিট তাওয়ায় রাখুন, উল্টে-পাল্টে ভালোভাবে সেঁকে নিন। সস দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

৩। জাফরানি ক্ষিরের পাটিসাপটা রেসিপি

জাফরানি ক্ষিরের পাটিসাপটা রেসিপি 

উপকরণ

ক্ষির তৈরি
– দুধ ২ কাপ।
– ডাবল ক্রিম ১ কাপ (না দিলেও হবে)।
– চিনি আধা কাপ।
– জাফরান ১ চিমটি।
– চালের গুঁড়া বা কর্নফ্লাওয়ার ১ চা-চামচ।

পিঠার গোলা তৈরি
– চালেরগুঁড়া ১ কাপ।
– ময়দা ১ কাপ।
– গুড় ১ কাপ বা স্বাদ অনুযায়ী চিনিও দিতে পারেন।
– পানি ১ কাপ।

প্রণালী

ক্ষির তৈরি
দুধ খুব ঘন করে জ্বাল দিতে হবে। ফুটে উঠলে চিনি, ক্রিম, জাফরান দিয়ে নাড়তে থাকুন। ক্ষির না হওয়া পর্যন্ত নাড়তে হবে। নইলে পাতিলের তলায় লেগে যাবে। দুধ যখন খুব ঘন হয়ে আসবে তখন চালেরগুঁড়া বা কর্নফ্লাওয়ার একটু পানি দিয়ে গুলে নিয়ে দুধে মিশিয়ে নাড়তে হবে। ক্ষির ঘন হয়ে এলে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে নিতে হবে।

পিঠার গোলা তৈরি

গুড় পানি দিয়ে চুলার আগুনে গলিয়ে নিতে হবে। গুড় ঠান্ডা হলে চালের গুঁড়া আর ময়দা মিশিয়ে এক ঘণ্টা ঢেকে রেখে দিন। তারপর একটি ছড়ানো ফ্রাইপ্যানে সামান্য তেল দিয়ে ডালের বড় চামচের এক চামচ গোলা নিয়ে প্যান দিয়ে ছড়িয়ে দিতে হবে। তাপর মাঝাখানে দেড় চা-চামচ ক্ষির দিয়ে পিঠা ভাজ করে নিতে হবে।

টিপস : গোলা খুব ঘন বা পাতলা হবে না। গুড় গরম থাকতে কখনও ময়দা আর চালের গুঁড়ার সঙ্গে মেশাবেন না। তাই ঠাণ্ডা করে তারপর মেশাবেন। পিঠার গোলায় চালের গুঁড়া আর ময়দা একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। শুধু চালের গুঁড়া দিয়ে করলে পিঠা ঠান্ডা হয়ে যাওয়ার পর মাঝখানে থেকে ভেঙে যায়।

৪। ডিমের পাটিসাপটা রেসিপি

ডিমের পাটিসাপটা রেসিপি 

উপকরণ

– দুধ দেড় লিটার।
– পোলাওর চালের গুঁড়া ২ কাপ।
– ডিম ১টি।
– ময়দা সিকি কাপ।
– চিনি আধাকাপ।
– চালের গুঁড়া ১ টেবিল চামচ।
– মালাই আধাকাপ এবং কুসুম গরম পানি পরিমাণমতো।

প্রণালী

দুধ ঘন করে অল্প অল্প চিনি মিশিয়ে জ্বাল দিয়ে ঘন করতে হবে। সামান্য দুধ তুলে ঠান্ডা করে ২ টেবিল চামচ চালের গুঁড়া গুলিয়ে দুধ ঢেলে দিতে হবে। চুলা থেকে নামিয়ে মালাই মিশিয়ে আবার চুলায় দিয়ে একটু শুকনা শুকনা করে নামাতে হবে।

ময়দা, চালের গুঁড়া ২ টেবিল চামচ, চিনি, ডিম ও পানি দিয়ে গুলিয়ে ২ ঘণ্টা রাখতে হবে।

ফ্রাইপ্যানে সামান্য তেল লাগিয়ে বড় গোল চামচ দিয়ে এক থেকে দেড় চামচ গোলা ঢেলে প্যানে ঘুরিয়ে বড় রুটির মতো করে গোল করতে হবে। রুটি সেকা শুকিয়ে এলে ২ টেবিল চামচ দুধের ক্ষীর রুটির ওপর লম্বাভাবে দিয়ে রুটি ভাঁজ করে মুড়িয়ে নিতে হবে।

৫। তালের পাটিসাপটা রেসিপি

তালের পাটিসাপটা রেসিপি 

উপকরণ

– তালের গোলা ১ কাপ।
– ময়দা আধা কাপ।
– চালের গুঁড়া ২ টেবিল চামচ।
– চিনি ২ টেবিল চামচ।
– ডিম ১টি।

পুর: কোরানো নারকেল ১ কাপ, দুধের ক্ষীর আধা কাপ, চিনি আধা কাপ জ্বাল দিয়ে পুর তৈরি করে নিতে হবে।

প্রণালী

তালের গোলার সঙ্গে বাকি সব উপকরণ মিলিয়ে মিশ্রণ তৈরি করে নিন। এবার তাওয়াতে সামান্য ঘি লাগিয়ে হাতলে করে গোলা দিয়ে তাওয়া ঘুরিয়ে রুটি তৈরি করতে হবে। ওপরটা শুকিয়ে এলে পুর দিয়ে পাটির মতো রোল করে পিঠা তৈরি করতে হবে।

আপনাদের সুবিধার জন্য ১০১ পিঠার রেসিপি দিয়ে আমরা তৈরি করেছি এনড্রয়েট এপস। এপসটি ডাউনলোড করতে এই লিংকে ক্লিক করুণ অথবা প্লে-স্টোরে “পিঠার ১০১ রেসিপি” অথবা “BD Romoni” লিখে সার্চ করুণ!

৬। প্যানকেক পাটিসাপটা রেসিপি

প্যানকেক পাটিসাপটা রেসিপি

উপকরণ

প্যানকেকের জন্য

– ময়দা-১ কাপ।
– নারিকেলের দুধ ২ কাপ।
– ডিম-২টি।
– লবণ-আধা চা চামচ।
– পানি-প্রয়োজনমতো।

পুরের জন্য

– নারিকেল কোরা-আধা কাপ।
– চিনি-আধা কাপ।
– আনারস কুচি- আধা কাপ।

প্রণালী

প্যানকেকের উপকরণ সব একসঙ্গে মিশিয়ে গোলা তৈরি করে নিন। কড়াইতে পুরের উপকরণ একসঙ্গে মিশিয়ে জ্বাল দিয়ে নিন। ফ্রাইপ্যানে প্যানকেকের গোলা ঢেলে প্যানকেক বানিয়ে এর ভেতর পরিমাণমতো পুর দিয়ে পাটিসাপটা রোল করে নিন।

৭। ভাপা পিঠা রেসিপি

ভাপা পিঠা রেসিপি 

উপকরণ

– সেদ্ধ ও আতপ চালের গুঁড়া ৫০০ গ্রাম।
– গুড় ১ কাপ।
– নারকেল কুরানো বড় ১ কাপ।
– লবণ আধা চা চামচ।
– পানি সামান্য।
– পিঠার জন্য ছোট ২টি বাটি।
– ২ টুকরো পাতলা কাপড়।

প্রণালী

চালের গুঁড়িতে লবণ মিশিয়ে হালকা করে পানি ছিটিয়ে ঝুরঝুরে করে মেখে নিতে হবে। এবার বাঁশের চালনিতে বা বড় ছিদ্রযুক্ত চালুনিতে চেলে নিন। হাঁড়িতে পানি দিয়ে মুখ ছিদ্র ঢাকনা বসিয়ে আটা দিয়ে আটকে দিয়ে চুলায় বসিয়ে দিন।

এখন একটি বাটিতে গুঁড়ি দিয়ে মাঝখানে গর্ত করে গুড় ও নারিকেল দিন তারপর আবার চালের গুঁড়া দিয়ে ঢেকে দিন।

এবার এক টুকরা পাতলা সুতির কাপড় ভিজিয়ে পিঠার বাটি ঢেকে উল্টে মুখ ছিদ্র ঢাকনার ওপর পিঠা রেখে সাবধানে বাটি খুলে পিঠা ঢেকে দিন।

সিদ্ধ হলে পিঠা উঠিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

৮। খেঁজুর রসে ভাপা পিঠা রেসিপি

খেঁজুর রসে ভাপা পিঠা রেসিপি

উপকরণ

– ঘন খেজুরের রস আধা কাপ।
– পাতলা খেজুরের রস ২ কাপ।
– মিহি কুরানো নারকেল ১ কাপ।
– সেদ্ধ চালের গুঁড়া ২ কাপ।
– আতপ চালের গুঁড়া আধা কাপ।
– পানি ১ কেজি।
– পাতলা পরিষ্কার কাপড় ২ টুকরা।
– ভাপাপিঠার হাঁড়ি ও বাটি ১টি।

প্রণালী

সেদ্ধ ও আতপ চালের গুঁড়া, লবণ ও ঘন রস আস্তে আস্তে মাখাতে হবে, যাতে পুরো মিশ্রণ ঝরঝরে থাকে। খেয়াল রাখতে হবে, যাতে চাকা না হয়ে যায়। তারপর একটা মোটা চালনিতে মিশ্রণটুকু চেলে নিতে হবে। এই মিশ্রণে হালকা হাতে নারকেল মেশাতে হবে।

হাঁড়িতে পানি ফুটে উঠলে বাটিতে হালকা হাতে চেপে পিঠা বসাতে হবে। এবার বাটি কাপড়ে মুড়িয়ে ভাপে বসিয়ে চটজলদি কাপড় একটু ফাঁক করে বাটি উঠিয়ে দিয়ে আর একটি পিঠা তৈরি করতে হবে। বাটি ওঠাতে দেরি করলে পিঠা বাটিতে আটকে যাবে।

সব পিঠা বানানো হলে ঠান্ডা করে ওপরে ঠান্ডা পাতলা রসে ভিজিয়ে ভিজিয়ে পরিবেশন করুন!

৯। শাহি ভাপা পিঠা রেসিপি

শাহি ভাপা পিঠা রেসিপি 

উপকরণ

– সেদ্ধ চালের গুঁড়া ২ কাপ।
– পোলাওর চালের গুঁড়া ২ কাপ।
– খেজুরের গুড় দেড় কাপ।
– নারকেল কোরানো ২ কাপ।
– মালাই ১ কাপ।
– কিশমিশ ২ টেবিল চামচ।

প্রণালী

পিঠার হাঁড়িতে বাষ্প করতে হবে। চালের গুঁড়ায় স্বাদমতো লবণ ও পরিমাণমতো কুসুম গরম পানি এমনভাবে মেশাতে হবে যেন চালের গুঁড়া দলা না বাঁধে। চালের গুঁড়া বাঁশের চালনিতে চেলে নিতে হবে। গুঁড়ায় অর্ধেক নারকেল কোরানো মেশাতে হবে।

একটি বাটিতে অল্প কিছু চালের গুঁড়া, কিছু নারকেল মাখানো চালের গুঁড়া, কিছু গুড় দিয়ে এর ওপর আবার নারকেল মাখানো চালের গুঁড়া দিয়ে, পেস্তাবাদাম, কিশমিশ দিয়ে আবার কিছু চালের গুঁড়া মিশিয়ে এটি পাতলা ভেজা কাপড় দিয়ে ধরে গরম পিঠার হাঁড়ির মুখে রেখে বাটি উল্টে দিতে হবে।

এরপর তা ঢেকে দিয়ে ১০-১২ মিনিট পর কাপড়সহ পিঠা তুলে কাপড় থেকে ছাড়িয়ে রাখতে হবে। পিঠার ওপর মালাই পেস্তাবাদাম কুচি দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করতে হবে।

১০। ঝাল সবজি ভাপা রেসিপি

ঝাল সবজি ভাপা রেসিপি 

উপকরণ

– চালের গুঁড়ি আধা কেজি।
– ধনেপাতা ১ কাপ।
– পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ।
– কাঁচামরিচ কুচি ১ টেবিল চামচ।
– গাজর ১ কাপের ৪ ভাগের তিন ভাগ।
– লবণ সামান্য।

প্রণালী

ভাপা পিঠার নিয়মে চালের গুঁড়ি ও পিঠার হাঁড়ি তৈরি করে নিন।

ধনেপাতা, পেঁয়াজ ও কাঁচামরিচ কুচি সামান্য লবণ দিয়ে মেখে নিন। ভাপা পিঠার নিয়মে ভেতরে ধনেপাতার পুর ভরে পিঠা বানিয়ে নিন। গরম গরম পরিবেশন করুন হাঁস বা গরুর ভুনা মাংসের সঙ্গে।

আপনাদের সুবিধার জন্য ১০১ পিঠার রেসিপি দিয়ে আমরা তৈরি করেছি এনড্রয়েট এপস। এপসটি ডাউনলোড করতে এই লিংকে ক্লিক করুণ অথবা প্লে-স্টোরে “পিঠার ১০১ রেসিপি” অথবা “BD Romoni” লিখে সার্চ করুণ!

১১। কাশ্মীরি ভাপা পিঠা রেসিপি

কাশ্মীরি ভাপা পিঠা রেসিপি 

উপকরণ

– আতপ চালের গুঁড়া ২ কাপ।
– পোলাওর চালের গুঁড়া ১ কাপ।
– তরল দুধ ১ কাপ।
– পাটালি গুড় ১ কাপ।
– মাওয়া ৩ টেবিল চামচ।
– পেস্তাবাদাম ২ টেবিল চামচ।
– কাজুবাদাম ২ টেবিল চামচ।
– কিশমিশ ৩ টেবিল চামচ।
– কাঠবাদাম ২ টেবিল চামচ।
– লবণ সামান্য।

প্রণালী

চালের গুঁড়ার সঙ্গে সামান্য লবণ ও দুধ মেখে কয়েক ঘণ্টা রেখে দিন। বড় ছিদ্রযুক্ত চালুনি দিয়ে চেলে নিন।

ভাপা পিঠার ডাইসে সামান্য চালের গুঁড়া দিয়ে বাদাম, কিশমিশ, গুঁড়া মাওয়া দিয়ে আবার ওপরে চালের গুঁড়া দিয়ে হালকাভাবে চেপে ভাপা পিঠার পাত্রে পিঠা তৈরি করে নিন। গরম গরম পরিবেশন করুন।

১২। গোলাপফুল পিঠা রেসিপি

গোলাপফুল পিঠা রেসিপি 

উপকরণ

– দুধ ২ কাপ।
– ময়দা ৩ কাপ।
– চিনি ৪ টেবিল চামচ।
– লবণ সামান্য।
– ঘি ২ টেবিল চামচ।
– সিরার জন্য চিনি ৩ কাপ।
– পানি দেড় কাপ।
– দারুচিনি ২ টুকরা।

প্রণালী

দুধ গরম করে চিনি, লবণ, ময়দা দিয়ে কাই করে নিতে হবে। পরে ঠাণ্ডা হলে অল্প অল্প করে ঘি দিয়ে ভালো করে মথে রুটি বেলে দুই ইঞ্চি ব্যাসে গোল গোল করে কেটে নিন।

এরপর ৬ টা ছোট রুটি নিয়ে একটার উপর আরেকটা রেখে সাজিয়ে নিন। তারপর রুটি গুলোকে গোল করে ভাঁজ করে রোল বানিয়ে চাকু দিয়ে কেটে দুই টুকরো করলেই দুইটা গোলাপ হবে।

তারপর গোলাপ গুলোর নিচের দিকে হাত দিয়ে একটু চেপে দিন। তাহলে আর পাপড়িগুলো আলাদা হয়ে খুলে যাবে না। এবার গরম ডুবো তেলে বাদামি রং করে ভেজে সিরায় ছাড়তে হবে।

১৩। শাহী গোলাপ পিঠা

শাহী গোলাপ পিঠা 

উপকরণ 

– আতপ চালের গুঁড়া ২৫০ গ্রাম।
– মাওয়া গুঁড়া ১ কাপ।
– বাদাম গুঁড়া।
– কিশমিশ ২ টেবিল চামচ।
– ময়দা আধা কাপ।
– লবণ সামান্য।
– চিনি পরিমাণ মতো।
– পানি পরিমাণ মতো।
– তেল ভাজার জন্য।
– ঘি ১ টেবিল চামচ।

প্রণালী

প্রথমে একটি হাঁড়িতে পরিমাণ মতো পানির সঙ্গে সামান্য লবণ দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে তাতে চালের গুঁড়া এবং ময়দা দিয়ে ১০-১২ মিনিট পর্যন্ত সিদ্ধ করে কিছুক্ষণ ঢেকে রাখুন। তারপর তাতে মাওয়া ও ঘি দিয়ে ভালো করে হাত দিয়ে মাখিয়ে গোল গোল ছোট ছোট লুচির মতো বেলে রাখুন।

ছোট ছোট লুচিগুলো এক সঙ্গে ৪-৫টি একটির ওপর একটি করে বসিয়ে মাঝে আঙুলের চাপ দিতে হবে। পরে চাপ দেওয়া জায়গায় ছুরি দিয়ে ৩টি করে দাগ কেটে গোলাপের মতো করে আকার করে ডুবন্ত গরম তেলে মচমচে করে ভেজে তুলুন।

এখন চিনিতে অল্প পানি, বাদামের গুঁড়া এবং কিশমিশ দিয়ে ঘন সিরা তৈরি করে তাতে ভাজা গোলাপগুলো দিয়ে কিছুক্ষণ রেখে তুলে পরিবেশন করুন।

১৪। হৃদয় হরণ পিঠা

হৃদয় হরণ পিঠা

উপকরণ

– ময়দা ১ কাপ।
– তরল দুধ দেড় কাপ।
– পোলাওর চালের গুঁড়া ২ টেবিল চামচ।
– লবণ সামান্য।
– চিনি বা গুড়ের সিরা দেড় কাপ।

প্রণালী

দুধ ফুটে উঠলে সামান্য লবণ, চালের গুঁড়া ও ময়দা দিয়ে নেড়ে নামিয়ে নিন। ভালোভাবে মথে পাতলা রুটি বানান। কুচি করে ভাঁজ করুন। এবার ভাঁজের মাঝের অংশ ভেতরে ঢুকিয়ে অপর দুই পাশ ঘুরিয়ে আটকে দিন। ডুবো তেলে ভাজুন, সিরায় দিয়ে তুলে নিন।

১৫। তেলে ভাজা পাকান পিঠা

তেলে ভাজা পাকান পিঠা

উপকরণ

– পাকা কলা – ১ টা।
– চালের গুঁড়া – ১ কাপ।
– ময়দা -১/৪ কাপ।
– চিনি- ৫ টেবিল চামচ বা স্বাদমত।
– বেকিং পাউডার – ১/২ চা চামচ।
– লবণ- ১/৮ চা চামচ।
– পানি – আনুমানিক ২/৩ কাপ।
– তেল – ডুবো তেলে ভাজার জন্য।

প্রণালী

চালের গুঁড়া, ময়দা, চিনি, লবণ, বেকিং পাউডার বাটিতে নিয়ে ভালভাবে মিশিয়ে নিন। কলা ছিলে ভাল করে ভর্তা করে তাতে শুকনা মিশ্রণ থেকে অল্প অল্প দিয়ে মাখাতে থাকুন এবং পানি দিয়ে খামি করতে থাকুন। খামি খুব ভাল করে মাখিয়ে ১/২ ঘন্টা মত ঢেকে রাখুন।

এবার খামি থেকে ছোট ছোট বল বানিয়ে নিন। প্লেটে তেল মাখিয়ে তাতে বল রেখে আঙ্গুল দিয়ে চেপে চেপে ২ ইঞ্চি দৈর্ঘের পাতলা ডিম্বাকারের পিঠা বানিয়ে নিন। এখন গরম তেলে হালকা বাদামী করে ভেজে নিন।

আপনাদের সুবিধার জন্য ১০১ পিঠার রেসিপি দিয়ে আমরা তৈরি করেছি এনড্রয়েট এপস। এপসটি ডাউনলোড করতে এই লিংকে ক্লিক করুণ অথবা প্লে-স্টোরে “পিঠার ১০১ রেসিপি” অথবা “BD Romoni” লিখে সার্চ করুণ!

১৬। ঝাল পাকান পিঠা

ঝাল পাকান পিঠা 

উপকরণ

– চালের গুঁড়া ২ কাপ।
– পেঁয়াজ কুচি ১-২ টেবিল চামচ।
– লবণ স্বাদমতো।
– কাঁচামরিচ কুচি ২ চা-চামচ।
– ধনেপাতা কুচি পরিমাণমতো।
– সয়াবিন তেল (ভাজার জন্য) ১ কাপ।

প্রণালী

প্রথমে চালের গুঁড়া হালকা গরম পানি দিয়ে গুলে পেঁয়াজকুচি, লবণ, কাঁচামরিচ কুচি ও ধনেপাতা কুচি দিয়ে গোল গোল করে ডুবো তেলে ভেজে নিন।

১৭। নকশি পাকন পিঠা

নকশি পাকন পিঠা

উপকরণ

– আতপ চালের গুঁড়া ২ কাপ।
– মুগ ডাল আধা কাপ।
– দুধ ২ কাপ।
– পানি ১ কাপ।
– ঘি ১ টেবিল চামচ।
– চিনি ১ কাপ।
– পানি ১ কাপ।
– এ ছাড়া নকশা করার জন্য খেজুরের কাঁটা ও টুথপিক লাগবে।

প্রণালী

দুধের সঙ্গে পানি মিশিয়ে ফুটান। ফুটে উঠলে সামান্য লবণ চালের গুঁড়া দিয়ে ভালোভাবে নেড়ে চুলা বন্ধ করে কয়েক মিনিট ঢেকে রাখুন। মুগ ডাল টেলে সেদ্ধ করে বেটে রাখুন।

চালের গুঁড়ার ডো ভালোভাবে মথে এর সঙ্গে ডাল ও ঘি দিয়ে মাখুন। রুটি বেলে পিঠা কেটে নিন। খেজুর কাঁটা ও নকশা তৈরি করে ডুবো তেলে মাঝারি আঁচে ভাজুন। ভাজা পিঠা সিরায় দিয়ে তুলে নিন।

১৮। ডালের পাকান বা নকশী পিঠা

ডালের পাকান বা নকশী পিঠা 

উপকরণ

– মুগ ডাল – ৩/৪কাপ ( ৪ ভাগের ৩ ভাগ)।
– মুসুরির ডাল – ১/৪ কাপ।
– চালের গুরা – পরিমান মত।
– লবন – সামান্য।
– হলুদ- খুবই সামান্য (কালারের জন্য)।

সিরার জন্য
– চিনি – ১ কাপ বা স্বাদ অনুযায়ী।
– পানি – ২ কাপ।
– এলাচ- ২-৩ টি।

প্রণালী

ডাল ধুয়ে চালের আটা বাদে সব উপকরন একসাথে দিয়ে সিদ্ধ করে নিন! ডাল সিদ্ধ হয়ে গলে গেলে চালের আটা দিয়ে দিন এবং জ্বাল অল্প আঁচে রেখে ভাল করে মিক্স করে কিছুক্ষন ঢেকে রাখুন। ডো টা চালের আটার রুটির মতো হবে। বেশি নরম হবে না। ৪-৫ মিনিট পরে নামিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন।

এখন ডোটাকে ভাল করে মিক্স করে পিড়িতে মোটা করে রুটি বেলে নিন। এবার নিচের পছন্দ মতো শেপে কেটে খেজুরের কাটা, সুই বা কাঠি দিয়ে ভিতরে ফুল লতাপাতা এঁকে নিন । এবার এই ফুল পাতা খুচিয়ে খুচিয়ে পাপড়ি তুলুন বা খুচিয়ে দিন।
এভাবে করলে ভাল ভাবে ভাজা হয় আর পিঠা মচমচা হয়। এবার ডূবো তেলে মাঝারি আঁচে হালকা বাদামি কালার করে ভেজে নিন।

সিরা কুসুম গরম করে নিয়ে তাতে কয়েকটি পিঠা এক সাথে ছেড়ে কিছুক্ষন রেখে দিন। কিছু সময় পরে একটি ছাকনির উপরে পিঠা গুলো তুলে রাখুন । এতে করে বাড়তি সিরা ঝরে যাবে। এবার ঠাণ্ডা করে এয়ার টাইট বক্সে ভরে রেখে দিন । তাহলে বেশ কয়েক ঘন্টা মুচমুচা থাকবে।

১৯। মুগডালে নকশী পিঠা

মুগডালে নকশী পিঠা

উপকরণ

– ময়দা ১ কেজি।
– ডিম ৪টি।
– মুগডাল বাটা আধা কাপ।
– ঘি ২ টেবিল চামচ।
– চিনি ২ কেজি।
– পানি ১ কেজি।
– এলাচ ৪টি।
– দারুচিনি ৪ টুকরা।
– তেল পরিমানমতো (ডুবো তেলে ভাজার জন্য)।

প্রণালী

প্রথমে চিনি ও পানি দিয়ে সিরা করে নিন। এরপর মুগডাল সিদ্ধ করে বেটে নিন। এবার ময়দা সিদ্ধ করে তার সঙ্গে ডাল, ডিম, ঘি দিয়ে ভালো করে ময়ান তৈরি করুন। এরপর এক ইঞ্চি মোটা করে রুটি বানিয়ে নকশা করে কেটে ডুবো তেলে ভাজুন।

এবার এক এক করে চিনির সিরায় ভিজিয়ে দিন। ঠাণ্ডা হলে পরিবেশন করুন।

২০। নকশি পিঠা

নকশি পিঠা

উপকরণ

– নতুন চালের গুঁড়া ২ কাপ।
– ময়দা আধা কাপ।
– লবণ সামান্য।
– গুড় বা চিনি ২ কাপ।
– পানি ১ কাপ।
– দারুচিনি ২ টুকরা।
– এলাচি ২টি।

প্রণালী

গুড় বা চিনি, পানি, এলাচি, দারুচিনি চুলায় জ্বাল দিয়ে সিরা করে নিন। চালের গুঁড়া শুকনা খোলায় টেলে নিন, দেড় কাপ বা তার একটু কম পানিতে লবণ দিয়ে চুলায় দিন। ফুটে উঠলে চালের গুঁড়া ও ময়দা দিয়ে খামির করে ঢেকে রাখুন।

ঠান্ডা হলে ভালো করে মথে আধা ইঞ্চি পুরু করে রুটি বেলে নিন।

পছন্দমতো আকারে কেটে খেজুর কাঁটা দিয়ে নকশা করে ডুবোতেলে ভেজে নিন। ভাজা পিঠা শিরায় দিয়ে কিছুক্ষণ রাখুন। সিরা থেকে উঠিয়ে পরিবেশন করুন।

২১। লবঙ্গ লতিকা পিঠা

লবঙ্গ লতিকা পিঠা

উপকরণ

খামিরের জন্য
– ময়দা ২ কাপ।
– তেল ২ টেবিল চামচ।
– লবণ সামান্য।
– লবঙ্গ ১৫-২০টি।
– তেল ভাজার জন্য।
– পানি প্রয়োজন মতো।

পিঠার পুরের জন্য
– নারকেল কোরানো ২ কাপ।
– গুড়/চিনি ১ কাপ।

সিরার জন্য
– চিনি ৪০০ গ্রাম।
– পানি ১ কাপ।

প্রণালী

ময়দা, তেল ও লবণ দিয়ে শক্ত খামির তৈরি করে নিন। নারিকেল ও গুড়/চিনি একসঙ্গে জ্বাল দিয়ে আঠালো করে পিঠার পুর তৈরি করে নিন। এরপর চিনি ও পানি জ্বাল দিয়ে ঘন সিরা তৈরি করে নিন। খামির নিয়ে পাতলা রুটি বেলে তার মাঝখানে পুর দিয়ে চারকোনা পরোটার মতো ভাজ করে নিন।

এরপর ভাজের ঠিক মাঝখানে একটি করে লবঙ্গ দিয়ে পিঠার মুখ আটকিয়ে দিতে হবে। এবার পিঠাগুলোকে ডুবো তেলে লালচে করে ভেজে নিয়ে সব শেষে চিনির সিরায় ডুবিয়ে উঠিয়ে নিন!

২২। গ্যাসের চুলায় চিতই পিঠা

গ্যাসের চুলায় চিতই পিঠা

উপকরণ

– ১ কাপ পোলাও এর চাল/কালিজিরা চাল।
– ১ মুঠো রান্না করা ভাত।
– হাফ চা চামচ লবণ।
– ২ টেবিল চামচ তেল।
– ১ চা চামচ চিনি।
– ১ চা চামচ বেকিংপাউডার।
– হাফ কাপ পানি(লাগলে আর একটু দিতে পারেন।)।

প্রণালী

চাল সারারাত পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। এরপর চালের পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। এবার সব উপকরণ একসাথে খুব ভাল ভাবে ব্লেন্ড করতে হবে।

একেবারে স্মুথ মিশ্রণ বানাতে হবে। খুব ঘন অথবা পাতলা করা যাবে না। মাঝামাঝিতে রাখতে হবে। প্রথমে মাঝারি হাই হিটে প্যান গরম করে নিয়ে ব্লেন্ডার এর জগ থেকে সরাসরি একটা পিঠার মাপে মিশ্রণ ঢালতে হবে। এবার পিঠা ঢেকে দিন।

৩০ সেকেন্ড পর পিঠা ফুলে উঠলে ঢাকনা তুলে নিন। চুলার তাপ কমিয়ে দিন। নিচের দিকটা কিছুটা মচমচে হলে পিঠা তুলে নিন।

পরেরটা দেওয়ার আগে প্যান আবার মাঝারি তাপে ভাল ভাবে গরম করুন। তা নাহলে পিঠা ফুলবে না।

২৩। দুধ চিতই পিঠা

দুধ চিতই পিঠা

উপকরণ

– চালের গুঁড়ি ২ কাপ।
– পানি ১ কাপ।
– দুধ দেড় লিটার।
– খেজুরের গুড় দেড় কাপ।
– লবণ স্বাদমতো।

প্রণালী

চালের গুঁড়িতে লবণ ও ১ কাপ পানি দিয়ে খুব ভালোভাবে ফেটিয়ে মসৃণ গোলা তৈরি করুন। মাঝারি ঘনত্বের গোলা হবে। গুড় দেড় কাপ পানি দিয়ে জ্বাল দিয়ে ছেঁকে রাখুন। দেড় লিটার দুধ জ্বাল করে এক লিটার করে নিন।

চুলায় খোলা বসিয়ে তেল মেখে নিন। খোলা খুব গরম হলে ডালের চামচে দুই চামচ গোলা দিয়ে ঢেকে দিন। ঢাকনার চারপাশে পানি ছিটিয়ে দিন। পিঠা হলে তিন-চার মিনিট পর খোলা থেকে তুলে নিন। খোলা থেকে পিঠা তুলে গুড়ের সিরায় ফেলুন। চুলায় দিয়ে জ্বাল দিন।
জ্বাল করা পিঠা ঠাণ্ডা হলে জ্বাল দেওয়া ঘন দুধ দিন। পাত্র ঝাঁকিয়ে চারদিকে দুধ মিশিয়ে দিন। সাত-আট ঘণ্টা ভিজিয়ে পিঠা পরিবেশন করুন।

বি. দ্র. ভালো গুড় হলে যদি দুধ দিলে জমে যাওয়ার আশঙ্কা না থাকে, তবে গুড় ও দুধ একসঙ্গে জ্বাল দিয়েও পিঠা করতে পারেন।

২৪। ডিম চিতই পিঠা

ডিম চিতই পিঠা 

উপকরণ

– পোলাওয়ের চাল বা আতপ চাল আধা কাপ।
– সিদ্ধ চাল ১ কাপ।
– লবণ সামান্য।
– ১ চা-চামচ বেইকিং পাউডার।
– গোলমরিচের গুঁড়া সামান্য।
– প্রতিটি পিঠার জন্য ১ টি ডিম।
– ১ টেবিল-চামচ ময়দা।
– কুড়ানো নারিকেল আধা কাপ।
– পরিমাণ মতো হালকা গরম পানি এটা দিয়ে চাল ব্লেন্ড করতে হবে। তাই ডিমের সাদা অংশ একেবারে শেষে মেশাবেন।

আরও লাগবে: একটি বাটিতে অল্প তেল রাখবেন পাশে। সুতির কাপড় দিয়ে তেল লাগিয়ে প্রথমে প্যান মুছে নেবেন। ২,৩টি পিঠা বানানোর পরপর ওই তেল জড়ানো কাপড় দিয়ে প্যান মুছতে হবে।

প্রণালী

চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা চাল ভিজিয়ে রাখতে রাখুন! এরপর ভেজা অবস্থায় চাল মিহি করে বেটে নিতে হবে বা ব্লেন্ডারে একে একে সব নিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। তারপর এক ঘণ্টা ঢেকে রাখতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে গোলা যেন খুব ঘন না হয় আবার বেশি পাতলাও না হয়।

লোহার কড়াই বা মাটির পিঠার সাজ চুলায় দিন। গরম হলে, প্রথমবার তেল জড়ানো কাপড় দিয়ে মুছে নিন। বড় চামচের এক চামচ গোলা প্যানে দিন।

এখন একটু অপেক্ষা করুন। বুদবুদ উঠলেই উপর দিয়ে একটি ডিম ভেঙে দিন। সঙ্গে একচিমটি গোলমরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে সামান্য লবণ দিন।

এক মিনিট পর নামিয়ে নিন। এভাবে বাকি পিঠাগুলো তৈরি করুন।

২৫। রুটি চিতই পিঠা

রুটি চিতই পিঠা

উপকরণ

– পোলাওয়ের চাল বা আতপ চাল আধা কাপ।
– সিদ্ধ চাল ১ কাপ।
– লবণ সামান্য।
– ১ চা-চামচ বেইকিং পাউডার।
– ১টি ডিমের সাদা অংশ।
– ১ টেবিল-চামচ ময়দা।
– কুড়ানো নারিকেল আধা কাপ।
– পরিমাণ মতো হালকা গরম পানি এটা দিয়ে চাল ব্লেন্ড করতে হবে। তাই ডিমের সাদা অংশ একেবারে শেষে মেশাবেন।

আরও লাগবে: একটি বাটিতে অল্প তেল রাখবেন পাশে। সুতির কাপড় দিয়ে তেল লাগিয়ে প্রথমে প্যান মুছে নেবেন। ২,৩টি পিঠা বানানোর পরপর ওই তেল জড়ানো কাপড় দিয়ে প্যান মুছতে হবে।

প্রণালী

চার থেকে পাঁচ ঘণ্টা চাল ভিজিয়ে রাখতে রাখুন! এরপর ভেজা অবস্থায় চাল মিহি করে বেটে নিতে হবে বা ব্লেন্ডারে একে একে সব নিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। তারপর এক ঘণ্টা ঢেকে রাখতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে গোলা যেন খুব ঘন না হয় আবার বেশি পাতলাও না হয়।

লোহার কড়াই বা মাটির পিঠার সাজ চুলায় দিন। গরম হলে, প্রথমবার তেল জড়ানো কাপড় দিয়ে মুছে নিন। বড় চামচের এক চামচ গোলা প্যানে দিন। দুতিন সেকেন্ড পর বুদ বুদ উঠলে রুটি ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে।

এক মিনিট পর নামিয়ে নিন। এভাবে বাকি পিঠাগুলো তৈরি করুন।।

ভর্তা, ভাজি বা মাংসের তরকারি সঙ্গে পরিবেশন করুন মুচমুচে রুটি চিতই পিঠা।

বি. দ্র. গুনে গুনে বাকী আরো ৭৬ টি পিঠার রেসিপি পেতে আমাদের এনড্রয়েট মোবাইল এপস “পিঠার ১০১ রেসিপি” ডাউনলোড করুণ।

মাদের রেসিপি এপসে এট্রাকটিভ ডিজাইনের সাথে পাচ্ছেন সহজ উপকরনের মাধ্যমে যতটুকু সম্ভব সহজে বিস্তারিত প্রস্তুত প্রণালী। থাকছে পছন্দের রেসিপি লিস্ট করে রাখার সুযোগ। সার্চ অপশনের মাধ্যমে দ্রুত রেসিপি খুজে বের করা সহ আরো অনেক ফিচার। 

তো আর দেরি কেন? এখনি ডাউনলোড করে নিন এপসটি। 

“পিঠার ১০১ রেসিপি” এপসটি ডাউনলোড করুণ!

গুগল প্লে-স্টোর থেকে আমাদের "পিঠার ১০১ রেসিপি" এন্ড্রয়েড এপসটি ডাউনলোড করুণ এখনি!